Address Writing format In Bangladesh । বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম ২০২৩

বিদেশে ঠিকানা লেখার নিয়ম ভিন্ন থাকলেও বাংলাদেশের কিন্তু ইংরেজী ও বাংলায় নির্ধারিত ঠিকানা লেখার নিয়ম রয়েছে – বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম ২০২৩

পত্র পাঠানোর ঠিকানা কিভাবে লিখবেন? –এখন চিঠির চেয়ে মেসেজ দিয়েই বেশি ভাবের আদান প্রদান হয়। বর্তমানে চিঠিপত্রের আদান প্রদান কম হওয়াতে আমাদের অনেকেই ভুলে যেতে বসেছি ঠিক কিভাবে খামের উপর ঠিকানা লিখতে হয়। আজ আমরা শুদ্ধ ও সঠিকভাবে খামের উপর ঠিকানা লিখা শিখবো। বাংলায় ও ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম চলুন দেখে নিই।

নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম বাংলা । পোস্ট অফিসে গিয়ে কিন্তু স্ট্যাম্প লাগিয়ে নিবেন।

বাংলায় ঠিকানা লেখার নিয়ম ২০২৩

সঠিকভাবে ঠিকানা লেখার গুরুত্ব অনেক অনেক বেশি। আপনার দেয়া ঠিকানা ভুল হলে হারিয়ে যেতে পারে আপনার গুরুত্বপূর্ণ চিঠি বা ডকুমেন্ট। তাছাড়া, ভুল ঠিকানার কারণে আপনার কাছে পাঠানো কোন ডকুমেন্ট বা পার্সেল পৌছাতে অনেক সময় লেগে যেতে পারে। কোন কোন ক্ষেত্রে উল্টো ঠিকানা লেখার ফলে আপনার চিঠি আপনার কাছে ফেরতও আসতে পারে।

ঠিকানা লেখার কোর নিয়ম কি?  ঠিকানা ছোট থেকে বড় এভাবে লিখতে হয়। যেমনঃ প্রথমে থাকবে আপনার বাসার নম্বর, এরপর থাকবে রোড নম্বর বা এলাকার নাম, তারপর থাকবে সেক্টর বা ওয়ার্ড নাম্বার, তারপর ধারাবাহিকভাবে পোস্ট অফিস, ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা ও জেলার নাম লিখতে হয়।

ইংরেজিতে নিজের ঠিকানা লেখার নিয়ম কি? সবক্ষেত্রে বিস্তারিত ঠিকানা লিখার প্রয়োজন হয় না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই, বাসার নম্বর, এলাকা বা রোডের নাম, পোস্ট অফিস, উপজেলা ও জেলার নাম লিখলেই হয়। গ্রাম, পোস্ট, উপজেলা, জেলা ইত্যাদি বাংলা বা ইংরেজী শব্দ ব্যবহার না করেও ঠিকানা লেখা যায়। ইংরেজিতে একটি শহরের ঠিকানা লেখার ফরমেট হল:  Flat#6(B), House#07, Road#11, Sector-3, Uttara, Dhaka-1230

যদি নিজের ঠিকানা না থাকে? যদি অস্থায়ী ভাবে কোন ঠিকানায় থাকেন বা আত্মীয়ের কোন ঠিাকানায় থাকেন তবে আপনি তার ঠিকানা লিখতে পারেন তবে নিয়মটা ভিন্ন হয়।  আপনি যদি কারো কেয়ারে থাকেন, যেমন আপনার বাবা/মা বা কোন আত্মীয় বা অভিবাবকের নাম ব্যবহার করতে পারেন। এক্ষেত্রে আপনার নামের পর, (প্রযন্তে বা care of: সেই ব্যক্তির নাম) এভাবে লিখুন।

ইংরেজীতে ঠিকানার লেখার নিয়ম । বাংলাদেশে যেভাবে ইংরেজীতে পত্র লেখার প্রচলন রয়েছে

ডাক টিকিটে বা চিঠির খামে ঠিকানা লেখার নিয়ম- চিঠির খামের দুইটি অংশ থাকে। একটি প্রেরক এবং অপরটি প্রাপক। যিনি চিঠি লিখবেন বা যে ঠিকানা থেকে চিঠি পাঠানো হবে সেটি প্রেরক অংশে লিখতে হবে। এবং যার কাছে চিঠি পাঠানো হবে না যে ঠিকানায় চিঠি পাঠানো হবে সেটি প্রাপক অংশে লিখতে হবে। চিঠির খামে ঠিকানা লেখার ক্ষেত্রে যিনি চিঠি পাঠাবেন (প্ররকের ঠিকানা) তার ঠিকানা বামে এবং যার কাছে চিঠি পাঠানো হচ্ছে (প্রাপকের ঠিকানা) ডানে লিখতে হবে।

খামের উপর নিজ জেলা কি লিখে দিতে হয়? / ব্যক্তিগত পত্র এবং চাকরির আবেদন প্রেরণের খাম লেখার ধরণ কিন্তু কিছুটা ভিন্ন হয়।

কোন সরকারি দপ্তরে চাকরির জন্য আবেদন লিখতে বা সরকারি অফিসে পত্র প্রেরণ করতে নিচের ফরম্যাটে লিখতে হবে।

Caption: Person to Govt. office Address on Envelope | নিজ জেলা উল্লেখ করা খুবই জরুরি

ইংরেজিতে খামের উপর ঠিকানা লেখার জন্য ডান পাশে যার কাছে চিঠি পাঠাবেন (প্রাপক) তার নাম লিখবেন এবং বামপাশে যিনি পাঠাচ্ছেন (প্রেরক) তার নাম লিখবেন। এক্ষেত্রে যার কাছে পাঠাচ্ছেন তার নামের পূর্বে (To) এবং যিনি পাঠাচ্ছেন তার নামের আগে (From) লিখবেন।

বর্তমানে পোস্ট কোড ব্যবহার কতটা গুরুত্বপূর্ণ?

ঠিকানা লেখার ক্ষেত্রে আপনি প্রথমে আপনার বাড়ি নাম্বার দেবেন এরপর ধারাবাহিকভাবে রাস্তা নম্বর/নাম, গ্রাম, পোস্ট অফিস (কোডসহ), থানা, উপজেলা ও সবশেষে জেলা লিখবেন। পোস্ট অফিস লেখার ক্ষেত্রে অবশ্যই পোস্ট অফিসের নামের পর (-) hypen বা ব্র্যাকেট দিয়ে পোস্ট কোড লিখবেন। যেমন, পোস্ট অফিস: কাপ্তাই-৪৫৩০

admin

আলামিন মিয়া, একজন ব্লগার, ডিজিটাল মার্কেটার, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজার। ব্লগিংকরছি প্রায় ৭ বছর যাবৎ। বিভিন্ন অনলাইন সেবা হাতের কাছে পেতে নির্দেশনা ও পদ্ধতি গুলো ব্যাখ্যা করা হয় যা আপনি খুব সহজেই এই ওয়েবসাইট হতে পেতে পারেন। যদি অতিরিক্ত কোন তথ্য প্রয়োজন হয় বা পরামর্শ থাকে তবে মেইল করুন admin@tricksboss.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *