আজকের ইফতারের সময়সূচি । সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩ ঢাকা

রোজার সময় টাইম যেন শেষই হয় না-ঠিক তখনই দেখতে প্রয়োজন হয় ইফতার টাইম টেবিল-সেহরী খাওয়া ও সময়মত ইফতার করার টাইম দেখে নিন – সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

রোজার ইফতার বলতে কি বুঝায়? – রমজান মাসে মুসলিম সমাজে রোজা রাখা হয়। এই রোজার সমাপ্তিতে সময় হলে একটি খাদ্য পরিবেশন করা হয় যা ইফতার বলা হয়। এই খাদ্য পরিবেশনে প্রায় সবচেয়ে প্রচলিত সাধারণত হল ডিম পোঁছনি বা ফুলকা পোঁছনি ও দুধ এবং ফলের রস এবং মিষ্টি ইত্যাদি। এছাড়াও কিছু স্থান স্থানে বিভিন্ন খাবার দ্বারা ইফতার আয়োজন করা হয়।

রোজার সময় মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের দ্বারা সাধারণত দোষারোপ করা কোন কাজ, জানুনী কিংবা সম্পূর্ণ পরিত্যাগ করা হয় না। রোজার মধ্যে মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের কাজকর্ম নিয়মিত চলতে থাকে, কিন্তু দিনের আহার ও পানীয়ের সেবন করা বন্ধ রাখা হয়। রোজার সময় মুসলমান ধর্মাবলম্বীদের দ্বারা আল্লাহর পক্ষ থেকে দেওয়া আহার ও পানীয় পরিহার করা হয় এবং এটি ইফতার নামে পরিচিত। সাহরী ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩ । ঢাকার সময়ের সাথে অন্যান্য জেলার সময়ের পার্থক্য

১ লা রমযান চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল। সাহরীর শেষ সময় সতর্কতামূলকভাবে সুবৃহি সাদিকের ৩ মিনিট পূর্বে ধরা হয়েছে এবং ফজরের ওয়াক্তের শুরু সুবহি সাদিকের ৩ মিনিট পর রাখা হয়েছে। অতএব, সাহরীর সতর্কতামূলক শেষ সময়ের ৬ মিনিট পর ফজরের আযান দিতে হবে। সূর্যাস্তের পর সতর্কতামূলকভাবে ৩ মিনিট বাড়িয়ে ইফতারের সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। উল্লেখ্য দেশের অন্যান্য বিভাগ ও জেলার সাহরী ও ইফতারের সময়সূচি ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয় থেকে প্রকাশ করা হয়েছে।

ইফতার ও সেহরীর সময় সূচি দেখে নিন / ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার ইফতারের সময়সূচি ২০২৩

রমজান মাসে সময় মত সাহরী গ্রহণ এবং ইফতার করা খুবই জরুরি। ইফতার বা সাহরী সময়মত গ্রহণ না করলে রোজা ভঙ্গ হতে পারে।

আজকের ইফতারের সময়সূচি । সেহরি ও ইফতারের সময়সূচি ২০২৩ ঢাকা

Caption: Download ifter and Seheri Time 

Ifter time Bangladesh । ইফতার করার টাইম টেবিল ২০২৩

  1. ২৪ মার্চ
  2. ২৫ মার্চ
  3. ২৬ মার্চ
  4. ২৭ মার্চ
  5. ২৮ মার্চ
  6. ২৯ মার্চ
  7. ৩০ মার্চ
  8. ৩১ মার্চ
  9. ০১ এপ্রিল
  10. ০২ এপ্রিল
  11. ০৩ এপ্রিল
  12. ০৪ এপ্রিল
  13. ০৫ এপ্রিল
  14. ০৬ এপ্রিল
  15. ০৭ এপ্রিল
  16. ০৮ এপ্রিল
  17. ০৯ এপ্রিল
  18. ১০ এপ্রিল
  19. ১১ এপ্রিল
  20. ১২ এপ্রিল
  21. ১৩ এপ্রিল
  22. ১৪ এপ্রিল
  23. ১৫ এপ্রিল
  24. ১৬ এপ্রিল
  25. ১৭ এপ্রিল
  26. ১৮ এপ্রিল
  27. ১৯ এপ্রিল
  28. ২০ এপ্রিল
  29. ২১ এপ্রিল
  30. ২২ এপ্রিল

পৃথিবীর কোন কোন দেশে মানুষ রোজা রাখে?

রোজা রাখা হলো ইসলামের একটি প্রধান আমল। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী মাসহর মুবারকে রোজা রাখা হয়। এই দেশগুলো হলো: সৌদি আরব: এখানে রোজা রাখা সর্বপ্রথম শুরু হয় এবং সালাতের পর রোজা শুরু হয়। সৌদি আরবে আগে ও পরে প্রযোজ্য সময়ে রোজা রাখা হয়। বাংলাদেশ: বাংলাদেশে সকল ইসলামিক মাস উপযোগী হয়। রমজান, শবে বরাত, শবে মেরাজ, শবে কদর এবং আশুরা হলো কিছু উপযোগী মাস। পাকিস্তান: পাকিস্তানে সকল ইসলামিক মাস উপযোগী হয়। রমজান, শবে বরাত, শবে মেরাজ, শবে কদর এবং আশুরা হলো কিছু উপযোগী মাস। ইন্দোনেশিয়া: ইন্দোনেশিয়াতে রমজান মাস উপযোগী। ইরান: ইরানে রমজান মাস উপযোগী হয়। এছাড়াও মুহাররম এবং শাবানা মাসে প্রতিদিন কুছটি রোজা রাখা হয়। ইরাক: ইরাকে সাধারণত রমজান মাস উপযোগী। এছাড়াও আশুরা নামক একটি দিন অন্যান্য দিনের মত উল্লেখযোগ্য। তুরস্ক: তুরস্কে রমজান মাস উপযোগী হয়। এছাড়াও মুহাররম, শাবানা এবং আশুরা এমন কিছু মাস রোজা রাখা হয়। মরক্কো: মরক্কোতে রমজান মাস উপযোগী। এছাড়াও মউলিদ নামক একটি মাসে রোজা রাখা হয়। ফিলিপাইন: ফিলিপাইনে রমজান মাস উপযোগী হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *