কুরআন অনুধাবন করার সহজ উপায় ২০২৩ । মোবাইল রেখে দিন এবং প্রতিদিন ৫টি করে শিখুন

কোরআন শিক্ষা করা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরজ- তবে কোরআন অনুধাবনও খুব জরুরি – কুরআন অনুধাবন করার সহজ উপায় ২০২৩

কোরআন কি?– কুরআন মজিদ অথবা কুরআ-ন মাজী-দ বা কোরআন (আরবি: القرآن‎‎ আল্-কুর্’আন্) ইসলাম ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ, যা আল্লাহর বাণী । এটিকে আরবি শাস্ত্রীয় সাহিত্যের সর্বোৎকৃষ্ট রচনা বলে মনে করা হয়। কুরআনকে প্রথমে অধ্যায়ে (আরবিতে সূরা) ভাগ করা হয় এবং অধ্যায়গুলো (সূরা) আয়াতে বিভক্ত করা হয়েছে।

কোরআন শিক্ষা করা কি ফরজ? হ্যাঁ। কোরআন মাজিদ শিক্ষা করা ফরজ, শিখে ভুলে গেলে মারাত্মক গুনাহ; অশুদ্ধ বা ভুল পাঠ করলে কঠিন পাপের কারণ হতে পারে। তাই কোরআন বিশুদ্ধভাবে শেখা ও সুন্দরভাবে তিলাওয়াত করা জরুরি। যাঁরা পড়তে জানেন না তাঁদের শিখতে হবে, যাঁরা শিখে ভুলে গেছেন তাঁদের পুনরায় পড়তে হবে এবং যাঁরা ভুল পড়েন তাঁদের সহিহ্ শুদ্ধ করতে হবে।

কোরআন বুঝে পড়ার গুরুত্ব কি? মহাবিশ্বের একমাত্র মহানিয়ন্ত্রক, আসমান-জমিনের একচ্ছত্র অধিপতি আমার আল্লাহতায়ালা। পৃথিবীর সমগ্র মানবজাতির জন্যে মানবজীবনের সার্বিক পূর্ণ সমাধানসহ যে হেদায়াত গ্রন্থ পাঠিয়েছেন তা হচ্ছে পবিত্র কুরআনুল করিম। এই কোরআন অবতীর্ণ হয়েছে আল্লাহতায়ালার প্রিয় হাবিব, সায়্যিদানা মুরসালিন, খাতেবুন নাবিয়্যিন হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর উপর ১৫০০ বছর আগে। এই সত্য কিতাবটি এসেছে কিয়ামত অবধি সমগ্র মানবজাতির জন্য, ‘আর এ কোরআন হচ্ছে) মানবজাতির জন্যে পথের দিশা, সৎপথের সুস্পষ্ট নিদর্শন ও (হক বাতিলের) পার্থক্যকারী’- সূরা বাকারা- ১৮৫। মহান আল্লাহতায়ালা সূরা বাকারার ২ নং আয়াতে বলেছেন, ‘(এই) সেই (মহা) গ্রন্থ (আল কোরআন), তাতে (কোনো) সন্দেহ নেই, যারা (আল্লাহ তায়ালাকে) ভয় করে (এই কিতাব কেবল) তাদের জন্যেই পথপ্রদর্শক’।

কুরআন শেখার সহজ উপায় pdf । কুরআন শেখার সহজ উপায় বই

গোটা কোরআনের অর্থ ও বক্তব্য সংক্ষিপ্তভাবে এই সুরায় উল্লিখিত হয়েছে। ইসলামের মৌলিক ও শাখাগত বিষয়ে বর্ণনা করা হয়েছে। আকিদা, ইবাদত, শরিয়ত, পরকালে বিশ্বাস ও আল্লাহর গুণবাচক নাম বিবৃত হয়েছে।

Caption: Donwload Full PDF

কোরআন শরীফে ১১৪টি সুরা । কোরআনে কি আছে?

  1. আল ফাতিহা
  2. আল বাকারা
  3. আল ইমরান
  4. আন নিসা
  5. আল মায়িদাহ
  6. আল আনআম
  7. আল আরাফ
  8. আল আনফাল
  9. আত-তাওবাহ্‌
  10. ইউনুস
  11. হুদ
  12. ইউসুফ
  13. আর-রাদ
  14. ইব্রাহীম
  15. সূরা আল হিজর
  16. আন নাহল
  17. বনী-ইসরাঈল
  18. আল কাহফ
  19. মারইয়াম
  20. ত্বোয়া-হা
  21. আল আম্বিয়া
  22. আল হাজ্জ্ব
  23. আল মু’মিনূন
  24. আন নূর
  25. আল ফুরকান
  26. আশ শুআরা
  27. আন নম্‌ল
  28. আল কাসাস
  29. আল আনকাবূত
  30. আর রুম
  31. লোক্‌মান
  32. আস সেজদাহ্
  33. আল আহ্‌যাব
  34. সাবা
  35. ফাতির
  36. ইয়াসীন
  37. আস ছাফ্‌ফাত
  38. ছোয়াদ
  39. আয্‌-যুমার
  40. আল মু’মিন
  41. হা-মীম সেজদাহ্‌
  42. আশ্‌-শূরা
  43. আয্‌-যুখরুফ
  44. আদ-দোখান
  45. আল জাসিয়াহ
  46. আল আহ্‌ক্বাফ
  47. মুহাম্মদ
  48. আল ফাত্‌হ
  49. আল হুজুরাত
  50. ক্বাফ
  51. আয-যারিয়াত
  52. আত্ব তূর
  53. আন-নাজম
  54. আল ক্বামার
  55. আর রাহমান
  56. আল-ওয়াকিয়াহ
  57. আল-হাদীদ
  58. আল-মুজাদালাহ
  59. আল-হাশর
  60. আল-মুমতাহিনাহ
  61. আস-সাফ
  62. আল-জুমুআ
  63. আল-মুনাফিকুন
  64. আত-তাগাবুন
  65. আত-তালাক
  66. আত-তাহরীম
  67. আল-মুলক
  68. আল-কলম
  69. আল-হাক্কাহ
  70. আল-মাআরিজ
  71. নূহ
  72. আল জ্বিন
  73. আল মুজাম্মিল
  74. আল মুদ্দাস্সির
  75. আল-ক্বিয়ামাহ
  76. আদ-দাহর
  77. আল-মুরসালাত
  78. আন নাবা
  79. আন নাযিয়াত
  80. আবাসা
  81. আত-তাকভীর
  82. আল-ইনফিতার
  83. আত মুত্বাফ্‌ফিফীন
  84. আল ইন‌শিকাক
  85. আল-বুরুজ
  86. আত-তারিক্ব
  87. আল আ’লা
  88. আল গাশিয়াহ্‌
  89. আল ফাজ্‌র
  90. আল বালাদ
  91. আশ-শাম্‌স
  92. আল লাইল
  93. আদ-দুহা
  94. আল ইনশিরাহ
  95. ত্বীন
  96. আলাক্ব
  97. ক্বদর
  98. বাইয়্যিনাহ
  99. যিলযাল
  100. আল-আদিয়াত
  101. ক্বারিয়াহ
  102. তাকাসুর
  103. আছর
  104. হুমাযাহ
  105. ফীল
  106. কুরাইশ
  107. মাউন
  108. কাওসার
  109. কাফিরুন
  110. নাসর
  111. লাহাব
  112. আল-ইখলাস
  113. আল-ফালাক
  114. আন-নাস

কোরআন বুঝে পড়ার ফজিলত কি?

আল্লাহতায়ালা এই কোরআনকে আমার রাসূল (সাঃ) এর নবুয়তি জীবনের ২৩ বছর ধরে বিভিন্ন ঘটনার প্রেক্ষাপটে ধীরে ধীরে নাযিল করেছেন মহান আরশে আজিম থেকে-যেটি সংরক্ষিত রয়েছে এক মহাফলকে- যার নাম লাওহে মাহফুজ। ‘এটি লিপিবদ্ধ রয়েছে একটি রক্ষিত গ্রন্থে। এই কোরআন একটি পূর্ণাঙ্গ জীবন বিধান। এখানে নিহিত রয়েছে মানব জীবনের সম্পূর্ণ সমাধান। এটির প্রতি হরফ পঠনে আল্লাহর পক্ষ থেকে পাওয়া যাবে ১০ নেকি আর তা বুঝে পড়লে সওয়াব এর মাত্রাও যেমন বেড়ে যাবে তেমনি সামগ্রিক জীবনের সম্পূর্ণ সমাধান যে এই কুরআনেই লিপিবদ্ধ রয়েছে তা পুংখানুপুংখভাবে বোঝা যাবে ও জানা যাবে। অতএব প্রত্যেক মুসলমানের উপর এই কোরআন জানা ও বুঝা ফরজ। যেহেতু আমরা এই কুরআনের উপর ঈমান এনেছি। আল্লাহর পক্ষ থেকে পাঠানো সমস্ত আসমানি কিতাব (তাওরাত, ইঞ্জিল, যাবুর, সহিফা ইত্যাদি) বিকৃত হয়েছে বারবার। যে জাতিগুলোর উপর এই কিতাবসমূহ অবতীর্ণ হয়েছে তারাই এই কিতাবকে কাঁটা-ছেড়া করে বিতর্কিত করে ফেলেছে। অতএব, এই মানবজাতির জন্য এখন একমাত্র ভরসা আগামী কেয়ামত অবধি আল্‌-কোরআন, আল্‌ কোরআন এবং আল্‌ কোরআন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *