গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি তালিকা ২০২৩। ২০১৮ থেকে ২০২৩ শ্রমিকের মজুরির বৃদ্ধির তালিকা

২০১৮ থেকে ২০২৩ শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধির তালিকা

 

 

২০১৮ থেকে ২০২৩ শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধির তালিকা PDF

 

 

২০১৮ থেকে ২০২৩ শ্রমিকের মজুরি বৃদ্ধির তালিকা

২০১৮ সালে একদম নীচের মজুরি ছিল ৮ হাজার টাকা। অর্থাৎ বৃদ্ধি ৫৬ শতাংশ। ২০১৮ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত জীবনযাত্রার ব্যয় কেমন বেড়েছে। এটা একটা বহুমাত্রিক হিসাব। কারণ জীবনযাত্রার ব্যয় মানে কেবল কাঁচাবাজারের খরচ বাড়া নয়, ওষুধ থেকে বাড়িভাড়া বহু কিছু বাড়ার হিসাব।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যের ভিত্তিতে ২০২৩ সালের ৬ জুন বিগত কয়েক বছরের মূল্যস্ফীতির যে হিসাব জানায় তাতে দেখা গেছে ২০১৮-১৯ অর্থবছর থেকে ২০২২-২৩ অর্থ বছরে মূল্যস্ফীতি ঘটেছে ৫ শতাংশের বেশি করে এমনকি কোন বছর প্রায় ৯ শতাংশ পর্যন্ত। গত পাঁচ বছরের মূল্যস্ফীতির হিসাবকে ভিত্তি হিসেবে নিয়ে আমরা যদি ধরি, একজন শ্রমিক ২০১৮ সালে আট হাজার টাকা মজুরি পেতেন, তাহলে এক বছর পর ৫ শতাংশ বেড়ে সেই মজুরি হওয়ার কথা ৮ হাজার ৪০০ টাকা। যেহেতু ঐ ১২ মাসে মূল্যস্ফীতি ঘটেছে ৫ দশমিক ৪৮ ভাগ সুতরাং ৮ হাজার ৪০০ টাকায় সে বাজারে পায় আগের হিসাবের ৭ হাজার ৯৬৪ টাকার পণ্য। অর্থাৎ তার প্রকৃত মজুরি এক বছর পর দাড়ালো আসলে ৭,৯৬৪।

পরের বছর ২০১৯ থেকে ২০২০ এর মাঝে আরেক দফা ইনক্রিমেন্টের পর তার মজুরি দাঁড়ায় ৮ হাজার ৮২০ টাকা। আর কেবল ঐ বছরের মূল্যস্ফীতি ৫ দশমিক ৬৫ ভাগ সমন্বয় করলে তখন সে পায় আসলে ৭ হাজার ৯০৯ টাকার পণ্য। লাগাতার দুই অর্থবছরের মূল্যবৃদ্ধি ১০০ টাকার পণ্য দুই বছর শেষে যখন ১১১. ৪৪ টাকা সমন্বয় করলে ঐ শ্রমিকের ঞরে ঢুকবে আসলে ৭,৯১৫ টাকার পণ্য বা সেবা।

পরের তিন বছরের হিসাব আর দিচ্ছি না এখানে। তবে উপরোক্ত হিসাব থেকে পরের বছরের চিত্রও অনুমান করা কঠিন নয়।ইনক্রিমেন্ট ও মূল্যস্ফীতির ব্যবধানের কারণে এভাবে ঘটলেও কেউ প্রকৃতপক্ষে বলছে না যে মজুরি বাড়ার পর থেকে শ্রমিকদের প্রকৃত মজুরি আসলে কমতে থাকে এবং মূল্যস্ফীতির সঙ্গে ন্যায্যভাবে সমন্বয় করতে হলে তাদের ইনক্রিমেন্ট হওয়া দরকার ন্যূনপক্ষে ১০ থেকে ১৫ শতাংশ হারে। এবং যেহেতু ঐ শ্রমিকদের তৈরি পণ্যের দাম বাড়ছে এবং টাকার বিপরীতে ডলারের দামও বাড়ছে সে কারণে বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধির হারও বাড়ানো সম্ভব হয়েছে।

 

গার্মেন্টস শ্রমিকদে মজুরি তালিকা ২০২৩

মজুরি বনাম প্রকৃত মজুরি শিকার রফতানিমুখী পোশাকখাতের শ্রমিকদের মজুরি বাড়ার ঘোষণা এসেছে। বলা হচ্ছে, এখন থেকে একদম নীচের মজুরির হার হবে ১২ হাজার ৫০০ টাকা।

তফসিল (ক) এর আওতাধীন গার্মেন্টস শ্রমিকদের

চুড়ান্ত বেতন কাঠামো হবে নিম্নরুপ-

আগের গ্রেড ৭ এখন হবে ৪ বেতন-১২৫০০/=

আগের গ্রেড ৬ ও ৫ এখন হবে ৩ বেতন-১৩৫৫০/=

আগের গ্রেড ৪ এখন হবে ২ বেতন-১৪২৭৩/=

আগের গ্রেড ৩ এখন হবে ১ বেতন-১৫০৩৫/=

এই বেতন কাঠামো ডিসেম্বরের ১ তারিখ হইতে কার্যকরী হইবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *