নেটওয়ার্ক সুইচ কি? সুইচ এর ব্যবহার ও সুবিধা ২০২৩

সুইচ হইতে যেমন একাধিক পিসি বা সিস্টেমকে কানেক্ট করা যায় ঠিক একই ভাবে রাউটার ব্যবহার করেও সেই কাজটি করা যায় – সুইচ এর ব্যবহার ও সুবিধা ২০২৩

নেটওয়ার্কিং এর ক্ষেত্রে সুইচ হলো এমন একটি যন্ত্র যা লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্কের বিভিন্ন অংশের মধ্যে তথ্য প্যাকেট আদানপ্রদানের সময় ফিল্টারিং এবং প্যাকেট ফরোয়ার্ডিং করতে পারে। সুইচ ওএসআই লেয়ারের অন্যতম ডাটা লিঙ্ক লেয়ারে কাজ করে। তবে কখনো কখনো এটি নেটওয়ার্ক লেয়ারেও কাজ করে।

নেটওয়ার্ক সুইচ সর্বাপেক্ষা আধুনিক Ethernet স্থানীয় নেটওয়ার্কে সংযুক্ত সুইচ। ক্ষুদ্র দপ্তর (SOHO) সমূহ অ্যাপলিকেশন একক সুইচ ব্যবহার করে, অথবা একটি ব্রডব্যান্ড পরিষেবা যেমন DSL অথবা কেবল ইন্টারনেট উপলব্ধি করতে ডিভাইস গেটওয়ে হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে থাকে। এই প্রযুক্তিতে ইন্টারফেস ব্যবহারকারী ডিভাইস VoIP এর জন্য একটি টেলিফোন ইন্টারফেস ও অন্তর্ভুক্ত করতে পারে।

একটি Ethernet সুইচ প্রত্যেক পোর্টের জন্য একটি করে আলাদা ডোমেন তৈরি করতে হয়ে থাকে।সুইচ দুই ধরনের পাওয়া যায় যা 8 বা 16 পোর্টের হয়। সুইচ প্রত্যেকটি কম্পিউটারকে আলাদা আলাদা ভাবে চিনতে পারে তাদের ইউনিক ইন্টারনেট প্রটোকল অ্যাড্রেস(ip address) দ্বারা। প্রেরক কম্পিউটার দ্বারা প্রেরিত ডাটা শুধুমাত্র গ্রাহক কম্পিউটারে প্রেরণ করে অন্য কোনো কম্পিউটারে পাঠায় না।

সুইচ একটি অথবা OSI মডেলের আরও বেশি স্তর পরিচালনা করতে পারে। একটি ডিভাইস একটি multilayer সুইচ হিসেবে এই স্তরগুলির একটির চেয়ে আরও বেশিতে যুগপৎ ভাবে পরিচালনা করে। সুইচে বাণিজ্যিক ব্যবহার, অন্তর্নির্মিতের জন্য অথবা modular ইন্টারফেস Ethernet, তন্তু চ্যানেল, ATM, ITU-T জি hn এবং 802 11 সহ সব নেটওয়ার্ক,এর আলাদা ধরন এর সংযোগ করতে পারে। কিছু ফায়ারওয়াল নেটওয়ার্ক সনাক্তকরণ এবং কার্যকারিতা বিশ্লেষণ মডিউল যে সুইচ পোর্টের দিকে নিয়ে জায়।

Network Switch ব্যবহারের সুবিধা / যে কারণে আপনি রাউটার এবং সুইচ ব্যবহার করে নেটওয়ার্কিং করবেন

ওয়ার্কস্টেশন যেভাবে কাজ করে।

Caption: Networking process

পিসিতে ইন্টারনেট কানেক্ট করার নিয়ম ২০২৩। পিসি টু সুইচ কিভাবে কানেক্ট করে?

  1. একটি সুইচের মাধ্যমে ক্যাবল সংযুক্ত করে আপনি খুব সহজেই দুটি পিসির মধ্যে ডাটা শেয়ারিং করতে পারবেন।
  2. নেটওয়ার্ক সুইচ ব্যবহার করে নেটওয়ার্কিং এর মাধ্যমে আপনি ডাটা, প্রিন্টার, গেমস ইত্যাদি সব কিছু শেয়ার করতে পারবেন।
  3. কোন হাব, সুইচ বা রাউটার এবং শুধুমাত্র একটি ক্রসওভার ক্যাবল হলেই নেটওয়ার্কিং করা যাবে।
  4. দুটি ডেক্সটপ/ল্যাপটপ বা একটি ল্যাপটপ ও একটি ডেক্সটপ এর মধ্যে ডাটা শেয়ারিং তৈরী করতে পারবেন যদিও তাতে একই অপারেটিং বা ভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করা থাকলেও, ফাইল শেয়ারিং করতে পারবেন।

ঠিক কি কাজে সুইচ ব্যবহার করা হয়?

সুইচ ইন্টারনেট নেটওয়ার্কের bandwidth সক্ষমতা বাড়ায়। Individual host PC গুলোর ক্ষেত্রে workload কমায় ফলে পিসি স্মুথ চলে। সামগ্রিকভাবে network এর performance বাড়ায় ফলে ইন্টারনেট সহজে ব্যবহার করা যায়। Switch গুলো প্রত্যেকটি কানেকশনের জন্য collision domains তৈরি করে ফলে যে নেটওয়ার্ক এই Switch ব্যবহার করে তার frame collisions কম হয়। আপনি আপনার workstation এ এই Switch গুলো সরাসরি connect করতে পারবেন। সুইচ থেকে এমসির মাধ্যমে আরেকটি সুইচ ব্যবহার করা যায়।

admin

আলামিন মিয়া, একজন ব্লগার, ডিজিটাল মার্কেটার, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজার। ব্লগিংকরছি প্রায় ৭ বছর যাবৎ। বিভিন্ন অনলাইন সেবা হাতের কাছে পেতে নির্দেশনা ও পদ্ধতি গুলো ব্যাখ্যা করা হয় যা আপনি খুব সহজেই এই ওয়েবসাইট হতে পেতে পারেন। যদি অতিরিক্ত কোন তথ্য প্রয়োজন হয় বা পরামর্শ থাকে তবে মেইল করুন admin@tricksboss.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *