South Korea Lottery 2023 apply online । কোরিয়ান ভাষা শিখে নামে মাত্র অর্থ দিয়ে লাখ টাকা বেতনে চাকরি

দক্ষিণ কোরিয়া যাওয়ার জন্য বোয়েসেল অনলাইনে লটারির আয়োজন করে এবং কোরিও ভাষায় দক্ষ জনশক্তিকে কোরিয়া নিয়ে যাওয়া হয় – South Korea Lottery 2023 apply online

কোরিয়া অনলাইন আবেদন– ইপিএস-এর আওতায় দক্ষিণ কোরিয়ার শিল্পখাতে বাংলাদেশি প্রার্থীদের চাকরিতে নিয়োগের লক্ষ্যে কোরীয় ভাষা পরীক্ষায় (ইউবিটি) অংশগ্রহণের জন্য নিম্নবর্ণিত যোগ্যতা ও শর্তপূরণ সাপেক্ষে নির্ধারিত তারিখ ও সময়ে নিবন্ধন সাইট eps.boesl.gov.bd অনলাইন নিবন্ধন সম্পন্ন করা যাবে।

কোরীয় ভাষা পরীক্ষা (ইউবিটি)’তে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে কোরীয় ভাষা পারদর্শী এবং উপরে বর্ণিত যোগ্যতার শর্তাবলী পূরণকারী আগ্রহী প্রার্থীগণকে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০টা থেকে ২৩ ফেব্রুয়ারি বিকাল ৫টা পর্যন্ত আগে আসলে আগে পাবেন (first come first serve) ভিত্তিতে নির্ধারিত নিবন্ধন সাইটে চাহিত তথ্য পূরণ পূর্বক প্রাথমিক নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে। নির্ধারিত ২০০০০ (বিশ হাজার) জন প্রার্থীর চূড়ান্ত নিবন্ধনের লক্ষে ২৩০০০ (তেইশ হাজার) জন প্রার্থী প্রাথমিক নিবন্ধন সম্পন্ন হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে নিবন্ধন সাইট বন্ধ হয়ে যাবে। তবে যদি একই সাথে (in parallel) একাধিক প্রার্থী শেষ ব্যক্তি হিসাবে আবেদন সম্পন্ন করেন, তবে তাদের সকলকেই প্রাথমিক নিবন্ধন এর সুযোগ দেয়া হবে। প্রাথমিক নিবন্ধন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করলে প্রার্থী একটি Submission ID পাবেন যার ফরম্যাট নিম্নরূপঃ 230000001, Submission ID এর শেষের ৫ ডিজিট দ্বারা প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীর ক্রম বোঝা যাবে।

প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীদের মধ্য হতে প্রথম ২০০০০ (বিশ হাজার) জন প্রার্থী (Submission ID 230000001 থেকে 230020000) চূড়ান্ত নিবন্ধনের লক্ষ্যে ২৩ ফেব্রুয়ারি সকাল ১১ ঘটিকার মধ্যে আগে আসলে আগে পাবেন (first come first serve) ভিত্তিতে এইচআরডি কোরিয়া কর্তৃক নির্ধারিত ফি স্কিলটেস্টসহ ২৮ মার্কিন ডলার সমপরিমাণ বাংলাদেশি টাকা ১০৮ থেকে ১১০ + এইচআরডি কোরিয়াতে মার্কিন ডলার প্রেরণের জন্য ব্যাংক চার্জসহ ৩১০০/- (তিন হাজার একশ) টাকা + অনলাইন ফি ৫০০/- (পাঁচশ) টাকা মোট ৩,৬০০/- (তিন হাজার ছয়শ) টাকা + বিকাশ কমিশন ৪১.৪০ (একচল্লিশ টাকা চল্লিশ পয়সা) অফেরতযোগ্য বিকাশ অ্যাপ-এর মাধ্যমে প্রদান সাপেক্ষে চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন করে কোরীয় ভাষা পরীক্ষার প্রবেশপত্র গ্রহণ করবেন। শুধুমাত্র প্রথম ২০০০০ (বিশ হাজার) জন প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীদের জন্য প্রযোজ্যঃ একজন প্রার্থী প্রাথমিক নিবন্ধন করার পর তার আবেদনটি কিছু প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যাবে। ফলে, প্রাথমিক নিবন্ধনের ৫-১০ মিনিট পর তিনি ফি প্রদান করতে পারবেন।

ঘরে বসেই বোয়েসেল EPS ফি পরিশোধ করা যায় / যেভাবে ইপিএস এর ফি বিকাশ করবেন

বিকাশে যেভাবে ইপিএস এর ফি পরিশোধ করবেন

South Korea Lottery 2023 apply online । কোরিয়ান ভাষা শিখে নামে মাত্র অর্থ দিয়ে লাখ টাকা বেতনে চাকরি

নির্ধারিত সময়ে ২০০০০ জন প্রার্থী চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন হলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে চূড়ান্ত নিবন্ধন কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাবে।
নির্ধারিত তারিখ ও সময়ের মধ্যে কোরীয় ভাষা পারদর্শী আগ্রহী কোনো প্রার্থী নিবন্ধন সম্পন্ন করতে ব্যর্থ হলে কোরীয় ভাষা পরীক্ষা অংশগ্রহণের সুযোগ থাকবে না। এক্ষেত্রে কোনো ধরণের সুপারিশ বা তদবির গ্রহণযোগ্য নয়। নিবন্ধনকালীন কোনো প্রার্থী সমস্যা/ জটিলতার সম্মুখীন সংক্রান্ত গুগল ডকস ফর্ম https://forms.gle/DPihKbnugRUjAm2X8 এ চাহিত তথ্য দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হলো। তথ্য প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনে তাৎক্ষনিকভাবে প্রার্থীর প্রদত্ত মোবাইল নম্বরে এসএমএস বা ইমেইলে জানানো হবে।

ভাষা না জেনেও কি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করা যাবে? পরীক্ষায় অংশগ্রহণের যোগ্যতা

  1. শিক্ষাগত যোগ্যতা এসএসসি/সমমান;
  2. পাসপোর্ট-এর মেয়াদ হালনাগাদ থাকা সাপেক্ষে ;
  3. বয়স সীমা ১৮ থেকে ৩৯ বছর (অর্থাৎ জন্ম তারিখ ফেব্রুয়ারি ২৩, ১৯৮৩~ ফেব্রুয়ারি ২২, ২০০৫ এর মধ্যে হতে হবে);
  4. ভিসায় Dirty Difficult Dangerous (3D) কাজ করার আগ্রহ থাকতে হবে;
  5. যার কালার ব্লাইন্ডনেস বা রঙ বোঝার সক্ষমতার সমস্যা নেই;
  6. কোরীয় ভাষা পড়া, লেখা ও বোঝার পারদর্শিতা থাকতে হবে (নিম্নের ৩ নং অনুচ্ছেদ দ্রষ্টব্য) ;
  7. মাদকাসক্ত/সিফিলিস শনাক্ত ব্যক্তিগণ অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন;
  8. যার ফৌজদারি অপরাধে জেল বা অন্য কোনো শাস্তি হয়নি;
  9. যারা দক্ষিণ কোরিয়ায় অবৈধভাবে অবস্থান করেনি;
  10. যার উপর বিদেশ যাত্রায় কোন নিষেধাজ্ঞা নেই বা যেতে কোন সমস্যা নেই এবং
  11. যারা ই-৯ বা ই-১০ ভিসায় কোরিয়াতে ৫ বছরের বেশি থাকেনি।

নিবন্ধন সংক্রান্ত বিষয়ে কোনো ব্যক্তি বা প্রাতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে গ্রহণযোগ্য অভিযোগ থাকলে এ সংক্রান্ত গুগল ডকস ফর্ম https://forms.gle/BkNGTrrNzX7HHPit9 এ চাহিত তথ্য দাখিল করার জন্য অনুরোধ করা হলো। তথ্য প্রাপ্তি সাপেক্ষে প্রয়োজনে অভিযুক্ত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইপিএস টপিকে নিবন্ধন ও উত্তীর্ণতা কেবলমাত্র জব অ্যাপ্লিকেশন করার যোগ্যতাকে নিশ্চিত করে, কোরিয়ায় চাকরির নিশ্চয়তা বহন করে না। অধিকন্তু যে সব ব্যাক্তি মেডিক্যাল টেস্টে অনুত্তীর্ণ হবে এবং কোরিয়ায় অবৈধ থাকার অভিজ্ঞতা আছে অথবা ই-৯ নির্ণায়কে পড়ে না, তারা কোরিয়ায় চাকরি পাবে না। দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রবেশের পর ড্রাগ ও সিফিলিস শনাক্ত হলে কোরিয়া থেকে ফেরত পাঠানো হয়। বাংলাদেশ সরকার-এর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়-এর সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালর-এর মধ্যকার সমঝোতা চুক্তি অনুযায়ী একমাত্র বোয়েসেল বৈধভাবে দক্ষিণ কোরিয়ায় শ্রমিক প্রেরণ করতে পারবে। ইপিএস-টপিক’এ উত্তীর্ণ হওয়ার পর যাদের জব রোস্টার কোরিয়ান কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদিত হবে তাদের মধ্য থেকেই কোরিয়ান শিল্প মালিকরা শ্রমিক নিয়োগ দিতে পারবে। অন্য কোন জনশক্তি রফতানিকারী এজেন্ট বা ভাষাশিক্ষা প্রতিষ্ঠান এর ব্যত্যয় ঘটালে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইপিএস টপিক সিবিটি’র নিবন্ধন ও পরীক্ষার ফি’র পর কোরিয়ায় প্রবেশ পর্যন্ত যে ব্যয় হবে তা বৈধ প্রেরণ ব্যয় হিসেবে বোয়েসেল-এর হোম পেইজে প্রকাশিত থাকবে। বিস্তারিত জানতে Full PDF Download করুন।

কোরীয় ভাষা পারদর্শী থাকতে হবে?

 যারা সিবিটি/ইউবিটি ২০২০ ও ২০২২-এ কাংঙ্খিত নম্বর পেয়েও চূড়ান্ত পর্যায়ে নির্বাচিত হতে পারেননি। যারা টিটিসিসহ সরকারি ও বেসরকারি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে কোরীয় ভাষায় প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেছেন। ক্ষেত্র বিশেষে যারা নিজ উদ্যোগে কোরীয় ভাষায় দক্ষতা অর্জন করেছেন। ৩ নং ক্রমিকে বর্ণিত শর্ত বহির্ভূত কেউ আবেদন করলে তার নিবন্ধন বাতিল বলে গণ্য হবে। প্রথম ২০০০০ (বিশ হাজার) জন প্রার্থীর মধ্যে যদি কেউ চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন না করেন, তবে তার প্রাথমিক নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে। এমতাবস্থায়, ২০০০০ (বিশ হাজার) জনের কোটা পূর্ণ করার লক্ষ্যে Submission ID এর পরবর্তী ক্রমানুসারে প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীদের চূড়ান্ত নিবন্ধনের জন্য নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়ে প্রযোজ্য ক্ষেত্রে ধারাবাহিকভাবে সুযোগ দেয়া হবে। এই ক্ষেত্রে পরবর্তী ক্রমানুসারে কারা সুযোগ পাবেন সেই তালিকা (Submission ID এর ক্রমানুসারে) এবং কতক্ষণের মধ্যে এই সুযোগ গ্রহণ করে চূড়ান্ত নিবন্ধন সম্পন্ন করতে হবে তা বোয়েসেল-এর ফেইসবুক পেইজ- https://www.facebook.com/boesl.gov.bd এর মাধ্যমে জানা যাবে। অর্থাৎ প্রদত্ত নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তালিকাভুক্ত একজন প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থী যদি চূড়ান্ত নিবন্ধন না করেন, তবে তার প্রাথমিক নিবন্ধন বাতিল হয়ে যাবে, এবং ক্রমানুসারে পরবর্তী প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীকে সুযোগ দেয়া হবে (পরবর্তী তালিকা ও সময় প্রকাশের মাধ্যমে)। সুতরাং প্রাথমিক নিবন্ধিত প্রার্থীদের মধ্যে যারা প্রথম ২০০০০ জন প্রার্থীর বাইরে, তাদেরকে সার্বক্ষনিক বোয়েসেল-এর ফেইসবুক পেইজ ফলো করতে হবে। প্রাথমিক নিবন্ধিত সকল প্রার্থীকে তাদের submission ID সংরক্ষণ করার জন্য পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

For More details Click here

admin

আলামিন মিয়া, একজন ব্লগার, ডিজিটাল মার্কেটার, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজার। ব্লগিংকরছি প্রায় ৭ বছর যাবৎ। বিভিন্ন অনলাইন সেবা হাতের কাছে পেতে নির্দেশনা ও পদ্ধতি গুলো ব্যাখ্যা করা হয় যা আপনি খুব সহজেই এই ওয়েবসাইট হতে পেতে পারেন। যদি অতিরিক্ত কোন তথ্য প্রয়োজন হয় বা পরামর্শ থাকে তবে মেইল করুন admin@tricksboss.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *