জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র – ভুল যাই হোক সংশোধনের জন‍্য নিম্নে কাগজপত্র দাখিল করতে হবে- জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, S.S.C বা J.S.C পরীক্ষার সার্টিফিকেট, পাসপোর্টের ফটোকপি, চেয়ারম্যান বা কমিশনারের সনদ, Online জন্মনিবন্ধন কপি।

পিতা-মাতার নামে ভুল- অনেক জাতীয় পরিচয়পত্রে পিতা বা মাতার নামে ভুল থাকে। ভুল সংশোধনে উভয়ের ক্ষেত্রেই যা যা লাগবে- আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, পিতা/মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র, Online জন্মনিবন্ধন, একাডেমিক সার্টিফিকেট (যদি থাকে)।

এনআইডিতে বয়স সংশোধন নিয়ম ২০২২– বয়স সংশোধন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বয়স সংশোধনে আপনার লাগবে হচ্ছে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, SSC পাশের সার্টিফিকেট, Online জন্মনিবন্ধন কপি, SSC পাশের সার্টিফিকেট যদি না থাকে সেক্ষেত্রে কোর্ট থেকে আপনার বয়স এপিঠ ওপিঠ করে আনতে হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্রে নামের ভুল জাতীয় পরিচয়পত্রে প্রথমত যে ভুলটি থাকতে পারে তা হচ্ছে নামের ভুল। কারো নামের একটি, দুটি বা তিনটি অংশ থাকে। নামের সম্পূর্ণ ভুল বা আংশিক ভুল থাকতে পারে। যদিও এ ভুল গুলো নাগরিক করেনি বরং করেছে নির্বাচন কমিশন কর্তৃপক্ষ। তবুও সংশোধন ফি দিয়ে নাগরিকেই সংশোধন করতে হবে।

জাতীয় পরিচয়পত্র বর্তমান সময়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ দলিল। আর এই গুরুত্বপূর্ণ দলিলে যদি কোন রকম ভুল থাকে তা আসলে মেনে নেয়া যায়না। তাই আজ আমরা আলোচনা করবো জাতীয় পরিচয়পত্রে কী কী ভুল থাকে আর কিভাবে তা সংশোধন করা যায়।

নামের বানান ভুল সংশোধন করার জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস / জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২২

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করতে কতদিন সময় লাগে? বর্তমানে অনলাইন বা ম্যানুয়াল যেভাবেই আবেদন করুন না কেন ১ মাস থেকে ৩ মাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে।

জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন 2022

Caption: NID name correction হয়ে গেল। প্রমানক দেখুন এখানে। এসব ছোট খাট সংশোধন করতে অনলাইনে আবেদন করুন।

দুটি পদ্ধতিতে জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন করা যায়

  • সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাচন অফিসে গিয়ে ভােটার আইডি কার্ড সংশােধন ফরম -২ সংগ্রহ করে পূরণ । করতে হবে। ভােটার আইডি কার্ড সংশােধন ফি রকেট/বিকাশ এর মাধ্যমে জমা দিয়ে তার রশিদ ও প্রয়ােজনীয় কাগজপত্র ফরমের পিছেনে সংযুক্ত করে জমা দিলে সংশােধনের কার্যক্রম শুরু হয়।
  • অনলাইনে ভােটার আইডি কার্ড সংশােধন এর আবেদন দাখিল করা যায়। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইট services.nidw.gov.bd ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে লগইন করলে ওই ভােটারের ছবি, নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, জন্ম তারিখসহ যাবতীয় তথ্য দেখা যায় এবং এগুলাে এডিট করার মাধ্যমে আবেদন দাখিল করা যায়। আপনি চাইলে ঘরে বসে নিজেই নিজের মােবাইল বা কম্পিউটার ব্যবহার করে এনআইডি কার্ড/ভােটার আইডি কার্ড সংশােধন এর আবেদন দাখিল করতে পারবেন। এক্ষেত্রে অফিসে যাওয়া আসার কষ্ট করার প্রয়ােজন হয় না এবং সময়ও বেঁচে যায়। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষিতে ঘরে বসে অনলাইনে এনআইডি কার্ড/ভােটার আইডি কার্ড সংশােধন এর আবেদন করাই ভাল। জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধন ২০২২ । NID Online NID correction

জাতীয় পরিচয়পত্রে ঠিকানা সংশোধন করার নিয়ম কি?

ঠিকানা সংশোধন একটু সময় সাপেক্ষ ব্যাপার। এজন‍্য আপনাকে যে সকল কাগজপত্র দাখিল করতে হবে সেগুলো হল – জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি, চেয়ারম্যান/কমিশনার কর্তৃক প্রদত্ত প্রত‍্যায়নপত্র, বিদ‍্যুৎ বা পানির বিলের কপি,উপরে উল্লেখিত জাতীয় পরিচয়পত্রে যেসকল ভুল হয়ে থাকে এবং যেসকল কাগজপত্র লাগে তা জানতে পারলাম। আপনি Online এর মাধ‍্যমে বা নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে আবেদনের মাধ্যমে এগুলোর সমাধান করতে পারবেন। এজন‍্য আপনাকে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত ফি প্রদান করতে হবে। যা তাদের Website : services.nidw.gov.bd/nid-pub এ দেয়া আছে।

NID Correction Notice । জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের নিয়ম ২০২৩