Portugal visa application from Bangladesh । বাংলাদেশ থেকে পর্তুগাল যাওয়ার নিয়ম

পিএইচডি অথবা জব নিয়ে বাংলাদেশী যে কোন নাগরিক পতুগালে যেতে পারেন – Portugal visa application from Bangladesh

পর্তুগাল কিভাবে যেতে হয়? –আপনি মাত্র কয়েকটি পদ্ধতি অনুসরন করে বাংলাদেশ থেকে পর্তুগাল যেতে পারবেন। যেমন, সবার প্রথমে আপনাকে বাংলাদেশে থাকা সেই দেশের এ্যাম্বাসির নিকট যোগাযোগ করতে হবে। এরপর আপনাকে আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য গুলো দিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আপনি যদি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পেতে চান, তাহলে আপনাকে পর্তুগাল এর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি গুলোতে এপ্লাই করতে হবে এবং প্রয়োজনে আপনার সিভি পাঠিয়ে দিতে হবে। আপনার প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো প্রদান করে ভিসা ফি পরিশোধ করতে হবে। দেখুন, আপনি বাংলাদেশ থেকে যেকোনো ভিসায় পর্তুগাল যেতে পারবেন। তবে সবার আগে আপনাকে অনলাইন থেকে আবেদন করতে হবে। তারপর আপনাকে আসলে কি কি কাজ করতে হবে তা আপনি আবেদনের পরেই জানতে পারবেন।

তবে মনে রাখবেন, যখন আপনি অনলাইন থেকে পর্তুগালে যাওয়ার জন্য আবেদন করবেন। তখন আপনি অবশ্যই সরকারি ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করবেন। এছাড়াও ওয়ার্ক পারমিট ভিসার জন্য আপনাকে প্রতিনিয়ত পর্তুগাল এর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি গুলোর খোজ খবর রাখতে হবে।

পর্তুগালে কি স্থায়ী হওয়া যায়? It’s easy to get the PR (Permanent Residence) from Portugal among Schengen listed European countries. স্থায়িভাবে বসবাসের জন্য পর্তুগাল এখন শীর্ষ তালিকায়। ইউরোপে একমাত্র পর্তুগাল এ দিচ্ছে PR (Permanent Residence) এর সুযোগ। পর্তুগাল এর PR পেলে ইউরোপের ২৭ টি দেশে থাকা, চাকুরী ও ব্যাবসা-বাণিজ্যের সমান সুযোগ সুবিধা পাওয়া যায়। যেকারণে অনেকেই UK, Germany, France, Italy থেকে আসছে PR এর জন্য। ৫ বছর পর পাসপোর্ট এর সুবিধা দিচ্ছে পর্তুগাল সরকার, পাসপোর্ট পাওয়ার পর কেও যদি ইচ্ছে করে তাহলে France, Germany, UK, USA, Canada, তে স্থায়ী ভাবে বসবাস করতে পারবে। পর্তুগাল বা কানাডা জব সার্কুলার দেখুন: bn.millionmakers.com/jobs

চাকরি বা পড়াশুনার জন্য পর্তুগাল যাওয়া যায় এবং সেখানে নাগরিকত্ব নিয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস করারও যায়।

ইকুইভ্যালেন্স হচ্ছে এমন একটি প্রক্রিয়া, যেখানে Decreto-Lei nr. 238/83 আইন অনুযায়ী একজন পর্তুগিজ কিংবা বিদেশি নাগরিক দেশটিতে বৈধভাবে বসবাসরত সমমান পর্তুগিজ ডিগ্রির জন্য আবেদন করতে পারবেন। মূলত বিদেশিরা ডক্টরেট, মাস্টার্স কিংবা ব্যাচেলরসহ আরও বেশ কিছু নির্দিষ্ট সমমান ডিগ্রির স্বীকৃতির জন্য অনলাইনে ইউনিভার্সিটি লিসবনের www.ulisboa.pt এই লিংকে আবেদনের মাধ্যমে সেবাটি নিতে পারেন।

Caption: Find your job in portugal

Migrate to Portugal । বাংলাদেশ থেকে পর্তুগালে যাওয়ার জন্য আপনার কিছু নিয়মাবলী মেনে চলতে হবে।

  1. আপনার পাসপোর্ট ভ্যালিড হতে হবে এবং পর্তুগালে থাকার মেয়াদ অবশ্যই পর্তুগালে থাকার সময় চলবে।
  2. বাংলাদেশ পাসপোর্ট ধারকেরা ভিসা প্রয়োজন করবেন পর্তুগালে ভ্রমণের জন্য। আপনি পর্তুগালের কোনো সফর এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করে ভিসা প্রয়োজনের জন্য তথ্য সংগ্রহ করতে পারেন।
  3. বাংলাদেশ থেকে পর্তুগালে প্রয়াত্তব স্থানে টিকিট কেনে নিতে হবে। আপনি বিভিন্ন পরিবহন কোম্পানির ওয়েবসাইট ব্যবহার করে টিকিট কিনতে পারেন বা কোনো ট্রাভেল এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

     

  4. পর্তুগালে ভ্রমণ করার আগে আপনাকে সাধারণত কোভিড-19 টেস্ট করাতে হবে। এই টেস্ট নেগেটিভ হলেই আপনি পর্তুগালে ভ্রমণ করতে পারবেন।

     

  5. পর্তুগালে যাওয়ার জন্য ভ্যাকসিনেশন সার্টিফিকেট প্রয়োজন হতে পারে। যদি আপনি কোভিড-19 ভ্যাকসিন গ্রহণ করে থাকেন, তবে সার্টিফিকেটটি সঠিকভাবে পরিচালিত ও বৈধ হতে হবে।

     

  6. আপনার ভ্রমণের আগে পর্তুগালে থাকার সময় সীমাবদ্ধতা পরীক্ষা করতে হতে পারে। সাধারণত বিদেশী ভ্রমণের জন্য এই সময় সীমাবদ্ধতা নেই, কিন্তু নতুন সময় পরিচালনা হতে পারে।

পর্তুগাল যেতে কত টাকা ব্যয় হয়?

সত্যি বলতে ভিসার উপর নির্ভর করে খরচ নির্ধারন করা হয়ে থাকে। তাই আপনার আসলে পর্তুগাল ভিসার জন্য কত টাকা খরচ করতে হবে। সেটা সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করবে আপনার খরচের উপর কিন্তুু স্বাভাবিক ভাবে পর্তুগাল যাওয়ার জন্য মোট ৭ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে ১০ লক্ষ টাকা খরচ করার প্রয়োজন হয়।

বাংলাদেশি ছাত্রছাত্রী যাঁরা এ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অনার্স, মাস্টার্স কিংবা ডক্টরেট ডিগ্রিতে পড়াশোনা করেন, পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীরা Linkedin–এ নিজের যোগ্যতা অনুযায়ী প্রোফাইল তৈরি করে নিতে পারেন। পরবর্তীকালে কোন কোন কোম্পানির চাকরির জন্য শিক্ষার্থী যোগ্য, তা বাছাই করে Linkedin থেকে সরাসরি আবেদন করতে পারবেন। বর্তমানে পর্তুগালে অনেক বাংলাদেশিই একই পদ্ধতি অবলম্বন করে বিশ্বের নামকরা কোম্পানিগুলোতে চাকরি করছেন।

admin

আলামিন মিয়া, একজন ব্লগার, ডিজিটাল মার্কেটার, সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজার। ব্লগিংকরছি প্রায় ৭ বছর যাবৎ। বিভিন্ন অনলাইন সেবা হাতের কাছে পেতে নির্দেশনা ও পদ্ধতি গুলো ব্যাখ্যা করা হয় যা আপনি খুব সহজেই এই ওয়েবসাইট হতে পেতে পারেন। যদি অতিরিক্ত কোন তথ্য প্রয়োজন হয় বা পরামর্শ থাকে তবে মেইল করুন admin@tricksboss.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *