ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচনে নতুন উদ্যোক্তা বা বিজনেস হিসেবে কি কি বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে?

বিজনেস বা উদ্যোগের ক্ষেত্রে সাবধানতার সঙ্গে ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচনে সে সব পয়েন্টে গুরুত্ব দিতে হবে সে গুলো হল

নতুন উদ্যোক্তা বা ব্যবসায়ী হিসাবে ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচনে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিম্নরূপে বিবেচনা করা যেতে পারে।

উদ্যোক্তাদের জন্য পণ্য ডেলিভারি সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ কাজের একটি। নতুন উদ্যোগের শুরুতেই ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচন করে নিতে হবে আপনাকে। যেহেতু আপনার বিজনেস বা উদ্যোগের ক্ষেত্রে এটি একটি নিয়মিত বিষয় হতে যাচ্ছে তাই সাবধানতার সঙ্গে ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচন করুন।

১. সার্ভিসের ধরন 

ডেলিভারি সার্ভিসের ক্ষেত্রে অনেক রকম অপশন আছে। কেউ কেউ শুধু আঞ্চলিক ভাবে ডেলিভারি দেয়, কেউ জাতীয় পর্যায়ে, আবার কেউ কেউ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ডেলিভারির সুযোগও দেয়।

কেউ কেউ শুধু নির্দিষ্ট কিছু পণ্য বা পার্সেল ডেলিভারি দেয়। সেটা হতে পারে ব্যক্তিগত কোনো পণ্য, ক্রয়কৃত পণ্য, ইনভেনটরি পণ্য অথবা সময়ের সাথে সাথে নষ্ট হতে থাকে এমন পণ্য। যেহেতু বিভিন্ন ডেলিভারি সার্ভিস এর দাম ও টাইমিংয়ের ক্ষেত্রে বিভিন্ন চাহিদা থাকে, তাই যেখানে আর্থিক ভাবে সুবিধা পাওয়া যাবে এবং তাড়াতাড়ি ডেলিভারি দেয়া হবে, সেটাই নির্বাচন করুন।

২. নিরাপত্তা ও সুরক্ষা 

ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা ও সুরক্ষা আরেকটা খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনার পণ্য এবং পার্সেলের যথাসম্ভব নিরাপত্তা ও সুরক্ষা কুরিয়ার সার্ভিসকেই নিশ্চিত করতে হবে।

প্রাপক নষ্ট হয়ে যাওয়া পণ্য পাক অথবা পণ্য তার কাছে একদম নাই পৌঁছাক সেটা আপনি চান না। কিংবা আপনার পাঠানো কোনো গোপনীয় তথ্য ফাঁস হয়ে যাক সেটাও আপনার কাম্য নয়। তাই, ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান নির্বাচনের ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলি বিবেচনা করতে হবে।

৩. টাইমিং এবং ট্র্যাকিং 

ডেলিভারি সার্ভিস কত দ্রুত আপনার পণ্য পৌঁছে দিতে পারবে, সেটা বিবেচনা করতে হবে। পণ্য নির্ধারিত সময়ে কিংবা তারও আগে কারো দরজায় পৌঁছে যাক সেটাই আপনি চাইবেন। কোনো কোনো ডেলিভারি সার্ভিস ২৪ ঘণ্টায় ইমার্জেন্সি ডেলিভারি করে, অন্যরা এক্ষেত্রে একদিন বা দুইদিন সময় নেয়।

টাইমিং ছাড়াও ট্র্যাকিংও খুব গুরুত্বপূর্ণ। এমন একটা ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচন করুন যারা ইন্টারনেটের মাধ্যমে আপনার পণ্য ট্র্যাক ও শিপমেন্ট স্ট্যাটাস চেক করার সুযোগ দিবে।

৫. কাস্টমার ফিডব্যাক 

ডেলিভারি কোম্পানিগুলির কাস্টমার রিভিউ চেক করলে আপনি তাদের সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পাবেন। কারণ সেই কাস্টমারদের সেই কোম্পানিগুলির সাথে সরাসরি সার্ভিস, পেমেন্ট, শিপমেন্ট ডেলিভারি টাইমিং, সুরক্ষা ও ট্র্যাকিং-এর বিষয়ে অভিজ্ঞতা হয়েছে।

প্রথম বারের মতো ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচন করতে গেলে প্রয়োজন অনুযায়ী সঠিক সার্ভিস নির্বাচন করাটা কিছুটা কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। ওপরের আউটলাইন করা বিষয়গুলি বিবেচনা করলে আপনার সিদ্ধান্ত নেয়ার কাজটা কিছুটা হলেও সহজ হয়ে যাবে। এই বিষয়গুলি আপনাকে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে।

এক জন নতুন উদ্যোক্তা হিসেবে ডেলিভারি সার্ভিস নির্বাচন করার জন্য তথ্যগুলো জানা প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *